বিসিএস প্রিলি বা প্রিলিমিনারি পরিক্ষার ২০০ নম্বরের আপডেট সিলেবাস pdf সহ

প্রিয় পাঠক, বর্তমান সময়ের সবচেয়ে প্রতিযোগিতামূলক একটি পরিক্ষা হলো বিসিএস পরিক্ষা। আজ আমরা বিসিএস প্রিলি বা প্রিলিমিনারি পরিক্ষার ২০২৪ সালের পিএসসি প্রকাশিত আপডেট সিলেবাস ও মান বন্টন নিয়ে আলোচনা করবো।

বিসিএস প্রিলি পরিক্ষার আপডেট সিলেবাস (২০২২-৯-১৪):

বর্তমানে বিসিএস প্রিলি সিলেবাস অনুযায়ী মোট ২০০ নাম্বারের উপর পরিক্ষা দিতে হয়! ২০০ নাম্বারের জন্য মোট ২০০ টি এমসিকিউ প্রশ্ন করা হয়।

প্রত্যক প্রশ্নের জন্য ১ নাম্বার নির্ধারিত। উত্তর সঠিক হলে ১ নাম্বার এবং প্রতি একটি ভূল উত্তর করার জন্য প্রাপ্ত মোট নাম্বার থেকে হাফ নাম্বার বা ০.৫০ নাম্বার করে কেটে নেয়া হয়।

আমরা জানি, বিসিএস পরিক্ষায় সাধারণ ক্যাডার পদ, শিক্ষা ক্যাডার ও কারিগরি পদ রয়েছে! সকলের লিখিত পরিক্ষায় একটু ভিন্নতা রয়েছে। তবে, সবার জন্য প্রিলি পরিক্ষার সিলেবাস একই এবং অভিন্ন।

আপনার সুবিধার জন্য- সর্বশেষ পিএসসি প্রকাশিত, বিসিএস প্রিলি পরিক্ষার ১০০% সঠিক ও নির্ভুল আপডেট সিলেবাস নিচে দেয়া হলোঃ

ক্রমিকবিষয়ের নামনম্বর
১।বাংলা ভাষা ও সাহিত্য৩৫
২।ইংরেজি ভাষা ও সাহিত্য৩৫
৩।বাংলাদেশ বিষয়াবলি৩০
৪।আন্তর্জাতিক বিষয়াবলি২০
৫।ভূগোল (বাংলাদেশ ও বিশ্ব)
পরিবেশ ও দূর্যোগ ব্যবস্থাপনা
১০
৬।সাধারণ বিজ্ঞান১৫
৭।কম্পিউটার ও তথ্য প্রযুক্তি১৫
৮।গাণিতিক যুক্তি১৫
৯।মানসিক দক্ষতা১৫
১০।নৈতিকতা, মূল্যবোধ
ও সুশাসন
১০
মোট নম্বর =২০০
বিসিএস প্রিলি আপডেট সিলেবাস ২০২৪

বিসিএস প্রিলিমিনারির সিলেবাস PDF আকারে ফ্রি ডাউনলোড করে রেখে দিতে পারেন, যাতে পরে খুজে পেতে সুবিধা হয়।

  • এখান থেকে বিসিএস প্রিলিমিনারি পরিক্ষার ২০০ নম্বরের সিলেবাস pdf- ডাউনলোড করুন.

উল্লেখ্য যে, ৩৪ তম বিসিএস প্রিলি পরিক্ষা পর্যন্ত প্রিলিতে ১০০ নম্বরের উপর পরিক্ষা হতো! ৩৫ তম বিসিএস প্রিলি পরিক্ষা থেকে ১০০ নম্বর থেকে ২০০ নম্বরে উন্নীত করা হয়।

আর বিসিএস পরীক্ষা বিধিমালা – ২০১৪ – এর বিধি ৭ অনুযায়ী, বাংলাদেশ সরকারি কর্ম কমিশন, ২০০ নম্বরের উপর এমসিকিউ ( MCQ ) টাইপ প্রশ্নের পরিক্ষা নেয়া শুরু হয়।

বিসিএস প্রিলির জন্য কিছু গুরুত্বপূর্ণ তথ্য জেনে নিনঃ

  • বি সি এস পরিক্ষায় আবেদনকারী প্রতিটি প্রার্থীকে অবশ্যই ২০০ নম্বরের এমসিকিউ পরিক্ষায় অংশ গ্রহণ করতে হবে।
  • এই ২০০ নম্বরের ২০০ টি প্রশ্নের জন্য মাত্র ২ ঘন্টা বা ১২০ মিনিট সময় পাওয়া যাবে।
  • প্রতিটি সঠিক নম্বরের জন্য ১ নম্বার পাওয়া যাবে।
  • প্রতিটি ভুল উত্তর করার জন্য হাফ নম্বর বা ০.৫০ নম্বর কাটা যাবে- মোট প্রাপ্ত নম্বর থেকে।
  • প্রিলি পরিক্ষার উত্তর পত্র পরে, পরিক্ষার্থীকে কোনো ভাবেই ফেরৎ দেয়া বা দেখানো হবে না।
  • বিসিএস প্রিলি পরিক্ষা দেয়ার পরে, রেজাল্ট ভালো বা মন্দ যেটা আসবে সেটাই চূড়ান্ত। পুনরায় ফলাফল নিরক্ষণ করার কোনো সুযোগ নেই।
  • কেবল যারা বিসিএস প্রিলি পরিক্ষায় উত্তীর্ণ হবেন- তারাই পরবর্তীতে লিখিত পরিক্ষা দেয়ার জন্য মনোনীত হবেন।
  • কত পেলে বিসিএস প্রিলি পরিক্ষায় পাশ করা যাবে, সেটা কোথায় উল্লেখ্য করা নেই! বিসিএস প্রিলির পাশ নম্বর- বাংলাদেশ কর্ম কমিশন নির্ধারণ করে থাকেন!

বিসিএস প্রিলি সংক্রান্ত সর্বাধিক জিজ্ঞাসিত কিছু প্রশ্ন এবং উত্তর জেনে নিনঃ

বি. সি. এস. প্রিলিতে মোট কয়টি প্রশ্ন থাকে?

২০০ টি।

প্রিলি পরিক্ষার সময় কতক্ষণ পাওয়া যায়?

২ ঘন্টা বা ১২০ মিনিট।

১ টি ভূল উত্তর দিলে কত নম্বর কাটা যায়?

হাফ নম্বর বা ০.৫০ নম্বর।

বিসিএস প্রিলিতে কয়টি ভূল উত্তর দিলে ১ নম্বর কাটে?

২ টি ভূল উত্তর দিলে ১ নম্বর কাটে।

সকল ক্যাডরের জন্য কি ‍প্রিলিতে একই রকম প্রশ্ন থাকে?

হ্যাঁ।

প্রিলিতে গণিতের উপর কত নম্বর থাকে?

১৫টি প্রশ্নে ১৫ নম্বর।

মানসিক দক্ষতায় কয়টি প্রশ্ন থাকে?

১৫ টি প্রশ্ন।

প্রিলিতে বাংলায় কত নম্বর থাকে?

৩৫ নম্বর ।

প্রিলিতে ইংরেজিতে কত নম্বর থাকে?

৩৫ নম্বর ।

সাধারন জ্ঞানে মোট কত নম্বর থাকে?

মোট ৫০ নম্বর। বাংলাদেশ বিষয় থেকে ৩০ এবং আন্তর্জাতিক বিষয় থেকে ২০ নম্বর।

কত নম্বর পেলে বিসিএস প্রিলি পরিক্ষায় পাশ করা যাবে?

প্রিলি পরিক্ষায় পাশ নম্বর নির্দিষ্ট নয়। পাশ নম্বর কর্মকমিশন থেকে নির্ধারন করা হয়! এক্ষেত্রে বাংলাদেশ কর্ম কমিশনের সিদ্ধান্ত চূড়ান্ত।

প্রিলিমিনারিতে সর্ব নিম্ন কত নম্বর পেলে বিসিএস লিখিত পরিক্ষার জন্য নির্বাচিত হওয়া যাবে?

এটার সঠিক উত্তর দেয়া সম্ভব নয়। (তবে- ৬৫ থেকে ১৩০ নম্বর পেলে লিখিত পরিক্ষার জন্য নির্বাচিত হওয়া যেতে পারে।)

বিসিএস ক্যাডার পদ কয়টি?

২৬ টি।

Leave a Comment