করোনা ভাইরাস প্রোটিনযুক্ত ভাইরাস কেনো

করোনা ভাইরাস প্রোটিনযুক্ত ভাইরাস কেনো

কি স্বাস্থ্য সচেতনতা

করোনা নিয়ে এখন মানুষের যেমন রয়েছে আতঙ্ক আবার করোনা নিয়ে মানুষের জানবারও আগ্রহের কোনো কমতি নেই ! অনেকেই জানতে চান করোনা ভাইরাস প্রোটিনযুক্ত ভাইরাস কেনো ? সাবান দিয়ে হাত ধোঁয়ার কারণে করোনা ভাইরাস নষ্ট হয় বা মারা যায় কেনো ? করোনা ভাইরাস আসলে কি ? চলুন বিষয়গুলো এক এক করে জেনে নেয়া যাক।

করোনা ভাইরাস কি ?

ভাইরাস বোঝার আগে কিছু বিষয় আগে জেনে নিতে হবে। তা হলো পৃথীবির সকল জীবই এক বা একাধিক কোষ বা সেল নিয়ে গঠিত। কোষ হলো দেহ গঠনের একক ।

একটি ইটের বাড়ি যেমন অসখ্যা ইট দিয়ে তৈরি সকল উদ্ভিদ ও প্রানীও তেমনি কোষ বা সেল দিয়ে তৈরি ! কোনোটি একটি কোষ নিয়ে গঠিক হতে পারে যেমন – ব্যাকটেরিয়া । আবার কোনোটি কোটি কোটি কোষ নিয়ে গঠিত হতে পারে; যেমনঃ মানুষ, গরু, ছাগল, আমগাছ, জামগাছ, তালগাছ, হাতি, ঘোড়া ইত্যাদি।

তাহলে ভাইরাসও তো একটি জীব (জীব না জড় তা নিয়ে দ্বীমত রয়েছে)! ভাইরাস তাহলে কয়টি কোষ নিয়ে গঠিত ?

সমস্যা তো এখানেই!

ভাইরাস আসলে কোনো কোষ নিয়ে গঠিত নয়। ভাইরাস হলো অকোষীয় একটি গঠন ! ভাইরাস জীব এবং জড় বস্তুুর মধ্যবর্তী এক গঠন বলে ধরে নেয়া হয় ! বলা হয় একটি ভাইরাস যখন কোনো পোষক দেহের বাহিরে অবস্থান করে তখন উক্ত ভাইরাস টি একটি জড় বস্তুর মতো আচরন করে ! আবার উক্ত ভাইরাস যখন কোনো পোষক দেহে প্রবেশ করে তখন তা জীবের মতো আচরন করে ! এমন অনেক ভাইরাস আছে বছরের পর বছর ধরে বরফে, বালিতে, পানিতে, মাটিতে; পাথরে, এমনকি বাতাসে নিষ্ক্রিয় বস্তুর মতো থেকে যায়। ভাইরাস টি যখনই কোনো প্রানী বা পোষক বা হোস্টের দেহে প্রবেশ করে; ঠিক তখনই এর কার্যকারিতা বা অ্যাকশন শুরু হয়। করোনা ভাইরাসও এমন করে কোনো না কোনো ভাবে মানুষের দেহে প্রবেশ করেছে ও এখন তা ভয়ংকর হয়ে উঠেছে !

প্রোটিনযুক্ত করোনা ভাইরাস কি ?

ওই যে অকোষীয় বস্তু বললাম ভাইরাস কে – সেই অকোষয়ী বস্তুটিই প্রোটিন বা আমিষের আবরণে গঠিত। মানে এই করোনা ভাইরাস টি সহজ কথায় প্রোটিন বা আমিষের একটি ক্ষুদ্র পিন্ড বা কণা ! সহজ কথায় সমস্ত করোনা ভাইরাসের গঠনেই রয়েছে প্রোটিন বা আমিষের অবদান বা গঠন; এজন্যই করোনা ভাইরাসকে প্রোটিন যুক্ত ভাইরাস বলে ।

সত্যি বলতে প্রত্যক কোষ বা কোষের ডিএনএ/আরএন ইত্যাদি গঠনের প্রাথমিক উপাদন হলো প্রোটিন ! যেমন ডিএনএ এর সূত্রক বা ডিএনএর ডাবল হেলিক্সের গঠনের মূলেও রয়েছে প্রোটিন! ডিএনএ অনুলিপনেও প্রোটিনের গুরুত্ব রয়েছে। অর্থাৎ দেহের কোষ মানে এক কথায়; দেহ গঠনের মূলে রয়েছে প্রোটিন।

[এখন বোঝা গেলো কেনো বলা হয়-দুধ বা প্রোটিন জাতীয় খাবার খেলে দেহ সুগঠিত হয় ও বৃদ্ধি পায় ! আসলে প্রোটিন এমন একটি উপাদান যা দেহ গঠন বৃদ্ধি সাধন করে]

সাবান ব্যবহারে করোনা মরে কেনো ?

করোনা ভাইরাস গঠনের মূল উপাদান আমিষ বা প্রোটিন হওয়ায়, ক্ষার জাতীয় বস্তু; যেমন- সাবান বা ডিটারজেন্ট এর স্পর্শে আসলে করোনা ভাইরাসের গঠন কাঠামো ভেঙ্গে যায়। মানে করোনা ভাইরাসের দেহের প্রোটিন আবরন ও সাবানের মধ্যে একটি বিক্রিয়া ঘটে; ফলে করোনা ভাইরাসের আবরন ভেঙ্গে নষ্ট হয়। এভাবে সাবান বা ক্ষার জাতীয় বস্তুর ব্যবহারের মাধ্যমে করোনা মরে যায় ! তাই করোনা ভাইরাস থেকে বাঁচতে সকলকে শুধু হাত নয়, সমস্ত শরিল বা আমাদের ব্যবহারের সব কিছুই সাবান বা ডিটাজেন্ট দিয়ে বার বার ধোঁয়ে নিতে হবে। করোনা ভাইরাস রোধে সাবান ব্যবহারের কোনো বিকল্প নেই।

[এখন বোঝা গেলো করোনা রোধ করতে সাবান দিয়ে কেনো বার বার হাত ধোতে হবে]

[আরো পড়ুন- করোনা থেকে বাঁচার ১০ টি সেরা পদ্ধতি কি কি]

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *